টাইগার শ্রফ VS হৃতিক রোশন - বিষয়ে খুটি নাটি।
টাইগার শ্রফ VS হৃতিক রোশন - বিষয়ে খুটি নাটি।

টাইগার শ্রফ VS হৃতিক রোশন – বিষয়ে খুটি নাটি।

টাইগার শ্রফ VS হৃতিক রোশন – বিষয়ে খুটি নাটি।

বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই তো বন্ধুরা আজকের এই. আমরা জানবো বর্তমানে আলোচিত বলিউডের সুপারস্টার ভিত্তিক এবং টাইগার শ্রফ সম্পর্কে অনেকের মধ্যে দ্বন্দ্ব থাকে যে অভিনয়ের দিক দিয়ে বানাতে দিক দিয়ে ঋত্বিক টাইগারের থেকে এগিয়ে আবার টাইগার নাকি রিত্তিকের থেকে এগিয়ে।

টাইগার শ্রফ VS হৃতিক রোশন - বিষয়ে খুটি নাটি।
টাইগার শ্রফ VS হৃতিক রোশন – বিষয়ে খুটি নাটি।

তো আজকের এই ভিডিওতে আমরা এই দুইজন সুপারস্টার এর মধ্যে তুলনামূলক আলোচনা করব এবং দেখব যে এই দুইজন সুপারস্টার এর মধ্যে কার সম্পদ বেশি এবং কার গাড়ির কালেকশন বেশি পার্কে ভালো নাচতে পারে এবং জনপ্রিয়তার দিক দিকে এগিয়ে রয়েছে।

তো সেটা যাই হোক ভিডিও শুরু করার আগে একটি ছোট্ট অনুরোধ থাকবে চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করার তো কথা না বাড়িয়ে মূল ভিডিওতে চলে যাচ্ছে তো প্রথমে তাদের সম্পদের মধ্যে তুলনামূলক আলোচনা করা যাক যেমন রিত্তিকের বর্তমান সময়ে মুহূর্ত পুতির পরিমাণ 47 মিলিয়ন ইউএস ডলার বা 400 কোটি টাকা তাছাড়া যেহেতু ঋত্বিক তার বাবার একমাত্র সন্তান তো সেই হিসেবে তার বাবার সব সম্পত্তি রিত্তিকের আর।

এদিকে হৃত্বিক রোশন বেশ ধনী এবং ঋত্বিক তার প্রত্যেকটি সিনেমা করার জন্য মোটামুটি 25 কোটি রুপি পারিশ্রমিক নিয়ে থাকেন এবং মাঝে মাঝে মুভির লাভের একটি বড় অংশ নিয়ে থাকেন তো যাই হোক এবার টাইগার শ্রফের সম্পত্তির পরিমাণ দেখে নেওয়া যাক।

বর্তমান সময়ে টাইগার শ্রফ এর মোট সম্পত্তির পরিমাণ মোটামুটি 11 মিলিয়ন ইউএস ডলার বাংলাদেশি টাকায় 93 কোটি টাকা তার মাত্র ছয় বছর ক্যারিয়ারে 93 কোটি টাকা আয় করেছেন এবং যেহেতু টাইগার শ্রফ ও তার বাবার একমাত্র সন্তান তো সেই হিসেবে টাইগারের বাবার সকল সম্পত্তি এবং টাইগার বর্তমানে একেকটি মুভি করার জন্য 10 থেকে 15 কোটি রুপি চার্জ করেন তো সম্পদের দিক দিয়ে টাইগার শ্রফের থেকে হৃত্বিক রোশন কিছুটা সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে।

এবার আসা যাক তাদের গাড়ির কালেকশনে তো প্রথমে রিত্তিকের গ্যারেজ থেকে ঘুরে আসি সত্যিবলতে ঋত্বিক কিন্তু বিলাসবহুল এর দিক দিয়ে টাইগারের থেকে একটু এগিয়ে রয়েছে যেমন তার কাছে রয়েছে একটি কৃত্রিম অক্সিন.

মাত্র শৌখিন মানুষের ব্যবহার করে বেসিক্যালি গাড়িটি হচ্ছে একটি লম্বা প্রাইভেটকার যার মধ্যে একটি ফাইভ স্টার হোটেলের মত যাবতীয় সুবিধা রয়েছে তো বাজারে এই গাড়িটির মূল্য মোটামুটি এক কোটি 50 লক্ষ রুপি এছাড়া রিত্তিকের কাছে রয়েছে একটি ছয় কোটি টাকা মূল্যের রুলস রয়েছে।

আর ভারতে খুব কম মানুষই রোজ রোজ ব্যবহার করে থাকে মানে যারা একটু বেশি সৌখিন তাদের কাছেই শুধু rolls-royce ব্যান্ডের গাড়ি গুলো রয়েছে যাইহোক রিত্তিক এর কাছে রয়েছে দুই কোটি রুপি মূল্যের একটি mercedes-maybach এছাড়া রয়েছে চার কোটি রুপির মূল্য ইংল্যান্ডের তৈরি অ্যাস্টন মার্টিন এবং এই গাড়িটি সর্বোচ্চ গতি হচ্ছে 170 মাইল প্রতি ঘন্টায় রয়েছে দুই কোটি রুপির মূল্য বিএমডব্লিউ 730 এবং রিত্তিকের সব থেকে কম দামের গাড়ি টি হচ্ছে।

আর এই গাড়িটির মূল্য হচ্ছে 40 কোটি রুপির যাইহোক রিত্তিকের সবগুলো গাড়ির মূল্য মোটামুটি 13 কোটি রুপির কাছাকাছি চলুন এবার দেখে আসি টাইগারের গ্যারেজে কি কি গাড়ি রয়েছে.

রয়েছে 60 লক্ষ রুপির বিএমডব্লিউ 520 আর এই গাড়িটি টাইগার সচরাচর ব্যবহার করে থাকেন এছাড়া তার কাছে রয়েছে মারসিটিস কোম্পানির দুই কোটি রুপি মূল্যের মারসিটিস e250 ছাড়া তার কাছে রয়েছে সেলিব্রিটিদের জাতীয় গাড়ি অডি কোম্পানির অডি q7 এবং এই গাড়িটির মূল্য মোটামুটি 90 লক্ষ রুপি এছাড়া রিত্তিকের টাইগারের রয়েছে।

একটি 40 লক্ষ রুপি মূল্যের মিনি কুপার এর পর টাইগার শপ এর সব থেকে কম দামি গাড়ি হচ্ছে হোন্ডা সিটি এবং গাড়ির মূল্য হচ্ছে 13 লক্ষ রুপি টু টাকা রোজগারের কারেকশন হচ্ছে চার কোটি রুপির কাছাকাছি এবং বোঝা যাচ্ছে টাইগার শ্রফ এমন একটা সৌখিন মানুষ নন এছাড়া টাইগার শ্রফ বলিউডের অন্যান্য নায়কদের মত হিহি হাহা করে বেড়ান না টাইগার খুব শান্ত স্বভাবের এবং ভদ্র গাড়ি কালেকশন এর দিক দিয়ে হৃত্বিক রোশন টাইগার এর থেকে বেশি অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে।

যাইহোক টাইগার বর্তমানে বসবাস করছেন মুম্বাইয়ের নামকরা বাস্তু বান্দ্রা নামের এই বিল্ডিঙে এছাড়া টাইগারের.

জ্যাকি শ্রফের একটি বিশাল বড় ফার্ম হাউস রয়েছে এছাড়া টাইগার শ্রফ মুভি বিজনেস মাইন্ডেড তা রয়েছে প্রবল নামের একটি গার্মেন্টস এর ব্র্যান্ড মানে বলতে গেলে তিনি সিনেমা করার পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যবসা করে থাকেন।

এবার অন্যদিকে ভিত্তিক বর্তমানে বসবাস করছেন জুহু মুম্বাই এর একটি বিল্ডিং এর বিশাল অ্যাপার্টমেন্টে আর মজার ব্যাপারটি হচ্ছে রিত্তিকের বাড়ির পাশে রয়েছে অক্ষয় কুমারের বারুদ যাইহোক এবার আসি যে ঋত্বিক এবং টাইগার এদের দুজনের মধ্যে কে ভালো ডান্স করতে পারেন তো নাচের বিষয়ে প্রশ্ন আসলে রিত্তিক এর মধ্যে রয়েছে এক ধরনের নাচের ট্যালেন্ট আর অন্যদিকে টাইগার এর মধ্যে রয়েছে অন্য ধরনের নাচের চ্যানেল বেসিক্যালি ঋত্বিক টাইগারের থেকে অনেক আগে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে এসেছে।

তো সেই হিসেবে ঋত্বিক নাচের দিক দিয়ে বলিউডে প্রথম সবার নজর কাড়ে মানে বলিউডের নায়ক রাত এমন আগে নাচের প্রতি গুরুত্ব দিত না ভিত্তিক প্রথম বলিউডে একটু আলাদা ধরনের ডান্স স্টেপ দেখায় এবং রিত্তিকের নাচের স্টেপ গুলো একেবারে আলাদা মানে ইউনিক হয়ে থাকে আর ঋত্বিককে যদি টাইগারের কপি করতে বলা হয় তাহলে সে পারবেনা।

কিন্তু অন্যদিকে যদি টাইগার কে বলা হয় রিত্তিকের নাচের পপি করতে তাহলে সেই কিন্তু হুম হুম সেটাই করবে কারণ একটি ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে টাইগার রিত্তিকের উৎসর্গ করে তার জীবনের ভালো ভালো ডান্স স্টেপ গুলো কপি করে এখানে একটি মজার ব্যাপার হচ্ছে টাইগারের নাচ দেখে অনেকে মনে করতে পারে।

তিনি হয়তো ছোটবেলা থেকে নাচের প্র্যাকটিস করত বা প্রথা ও নাস্তিক তো আসলে ব্যাপারটা কিন্তু সেরকম নয় টাইগার প্রথম নাচ প্র্যাকটিস করেন 2012 সালের দিকে যখন তিনি সিদ্ধান্ত নেন যে তিনি বলিউডে কাজ করবেন তখন থেকে আর তিনি মাইকেল জ্যাকসন কে তার নাচের গুরু মানেন এবং তিনি বলেন যদি মাইকেল জ্যাকসন না থাকতো তাহলে তার নাচ শেখার ইচ্ছা কখনোই জাগতো না।

আর তাছাড়া ট্যালেন্টেড দিক দিয়ে ঋত্বিকের থেকে টাইগার একটু বেশি এগিয়ে রয়েছে যেমন টাইগার শ্রফ প্রথম থেকে অভিনয় করতে চাইত না তার ঝোঁক ছিল মার্শাল আর্ট বা অ্যাথলিট হতে চাইতেন আসলে টাইগার ছোটবেলা থেকে ব্রুসলির মার্শাল আর্ট সিনেমাগুলো দেখতো আর এর ফলে তার ভেতর ফাইট শেখার একটি আগ্রহ চলে আসে এবং সাথে সাথে.

বডি বিল্ডিং এর উপর আকর্ষণ বৃদ্ধি পায় তো মজার ব্যাপারটি হচ্ছে টাইগার শ্রফ কিন্তু মার্শাল আর্টে ব্ল্যাক বেল্ট এর অধিকারী এবং দক্ষিণ কোরিয়া একটি মাসআলা প্রতিযোগিতায় তিনি পুরস্কার পান আর এ জন্যই টাইগারের সিনেমাতে আপনি একটু বেশি মাসআলার টাইপের 159 পাবেন আর মজার ব্যাপারটি হচ্ছে টাইগার শ্রফ কিন্তু তার নিজের 100 নিজে করে থাকে মানে তার সিনেমায় কোন আলাদা করে স্টার মাস্টার লাগেনা এবং টাইগার বাস্তবে অনেক ট্যালেন্টেড যেমন বলিউডে কোন নায়ক টাইগার কে মাসআলার বা ভারোত্তোলন প্রতিযোগিতায় হারাতে পারবে না।

তো যাই হোক এখানে লক্ষণীয় বিষয় হচ্ছে ঋত্বিক কিন্তু বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে তার এত সুন্দর বডি নিয়ে আসেনি ঋত্বিক যখন প্রথম ইন্ডাস্ট্রিতে আসেন তখন তার শরীর কিন্তু ছিল সুৎকা পরে যখন দেখল বলিউডের নায়ক একটু বেশি বডিবিল্ডার হয়ে গিয়েছে বা বডি বিল্ডিং না করলে মার্কেটে টিকে থাকা যাবে না তার পর থেকেই ভিত্তিক তার বডিবিল্ডিং করা শুরু করেন আর অন্যদিকে টাইগার শ্রফের প্রথম সিনেমা হিরোপান্তি মুভির একটি সুন্দর বডি নিয়ে কাজ শুরু করেন.

টাইগার অনেক পরিশ্রমী তিনি তার বডি পারফেক্ট করেই মুভিতে কাজ করা শুরু করেছেন এছাড়া ঋত্বিক ও কিন্তু কম পরিশ্রমী নয় সম্প্রতি ওয়ার মুভি করার আগে রিতিকের বডি পুরা ফুলে ফেপে উঠেছিল,

এবং সেই মুভি ডিরেক্টর ভিত্তিতে খুব কম সময় দিয়েছিল তার বডি ফিট করার জন্য আর এর ফলে ঋত্বিক মাজায় গামছা বেঁধে নামে তার বডি ঠিক করার জন্য আর মাত্র কয়েক মাসের মধ্যে তার ওয়ার মুভি কাবির ক্যারেক্টার এর জন্য ফিট হয়ে যান।

তো যাই হোক বডিবিল্ডিং নাচ কিংবা পরিশ্রমের দিক দিয়ে টাইগার এবং ঋত্বিক দুজনে সমান সমান কিন্তু বাস্তব জীবনের ট্যালেন্টেড দিক দিয়ে টাইগার শ্রফ কিছুটা এগিয়ে রয়েছে।

তো যাই হোক এবার তাদের পার্সোনাল লাইফ সম্পর্কে কিছু তথ্য জেনে আসা যাক যেমন হৃত্বিক রোশন এর সম্পূর্ণ নাম হচ্ছে ঋত্বিক রাকেশ রোশন এবং ডাকনাম হচ্ছে এবং তিনি জন্মগ্রহণ করেছেন 974 সালে মুম্বাই তো সেই হিসেবে তার বর্তমান বয়স হচ্ছে 46 বছর এবং রিত্তিকের বাবার নাম হচ্ছে রাকেশ রোশন আর তিনি কিন্তু বলিউডের একজন বড় দিরেক্টর তার পরিচালিত কিছু বিখ্যাত মনে হচ্ছে কারান আরজুন.

কোহিমিলগায়া এবং রিত্তিকের মায়ের নাম হচ্ছে পিংকি রসায়ন এছাড়া রিত্তিকের একমাত্র বড় বোনের নাম হচ্ছে সুনাইনা রসায়ন হৃত্বিক রোশন এর স্ত্রীর নাম হচ্ছে সুজান খান এবং তিনি বিয়ে করেন মোটামুটি 2000 সালের দিকে এবং রিত্তিকের ঘরে দুটি সন্তান রয়েছে তো প্রথম ছেলেটির নাম হচ্ছে রিহান রসায়ন এবং দ্বিতীয় ছেলেটির নাম হচ্ছে রিদান রসায়ন রিত্তিকের লাভ লাইফ নিয়ে অনেক কাহিনী রয়েছে।

সেগুলো আর বললাম না আর অন্যদিকে টাইগার এর সম্পূর্ণ নাম হচ্ছে যায় এমন শর্ত যাইহোক টাইগারের জন্ম হয়েছে 1989 সালে তো সেই হিসেবে তার বর্তমান বয়স হচ্ছে 31 বছর এবং টাইগারের বাবা হচ্ছে বলিউডের বিখ্যাত অভিনেতা জ্যাকি শ্রফ আর অন্যদিকে তার মায়ের নাম হচ্ছে আয়েশা সরকার মজার ব্যাপারটি হচ্ছে টাইগারের মা হচ্ছে বলিউডের একজন বড় প্রডিউসার আর ক্যাটরিনা কাইফকে টাইগারের মা প্রথম বলিউডে নিয়ে আসেন।

তো যাই হোক টাইগারের একমাত্র বোনের নাম কৃষ্ণ শ্রফ তবে টাইগার শপ এখনো বিয়ে করেননি কিন্তু বলিউডের নায়িকা দিশা পাটানির সাথে তার রিলেশন রয়েছে এবং সম্প্রতি তারা বিয়ে.

চলেছেন তো এখানে অনেকে মনে করবেন যে দিশা পাটানির সাথে টাইগার শপ এর পরিচয় হচ্ছে বাগি টু মুভি ধারাক কিন্তু আসলে তা নয় দিশা পাটানির সাথে টাইগার শপের অনেক আগে থেকেই সম্পর্ক রয়েছে।

তো যাই হোক এখানে টাইগার এবং ঋত্বিকের সম্পর্কে অনেক কিছুই জানলাম এখানে অনেকে ঋত্বিককে পছন্দ করবেন আবার অনেকেই টাইগার কে পছন্দ করবে কিন্তু আসলে ঋত্বিক বলিউডে তাঁর আলাদা জায়গা করে নিয়েছে আর ঋত্বিকের ফান ফলোয়ার কিন্তু বেশ বড় এছাড়া হৃত্বিক রোশন হচ্ছে এশিয়ার সবথেকে হ্যান্ডসাম পুরুষ আর ফ্রি ফায়ারে।

কিন্তু রিত্তিকের নামে একটি ক্যারেক্টার রয়েছে আর ঋত্বিক বলিউড অনেক আগে থেকেই কাজ করছে প্রায় 2000 সালের আগে থেকে মানে যখন টাইগার শপ একটা বাচ্চা ছেলে আর মজার ব্যাপারটি হচ্ছে টাইগার বলিউডে কাজ করছে 2014 সাল থেকে আর এত কম সময়ে টাইগার বিপুল পরিমাণে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে তবে যেহেতু টাইগারের ক্যারিয়ার এখনো অনেক লম্বা তাই আমার মতে টাইগার কিন্তু আরেকটু পরিশ্রম করলে রিত্তিক এর থেকেও বেশি জনপ্রিয়তা অর্জন করলেও করতে পারে।

পোষ্টটি কেমন লাগলো? ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ।।

About Sonyo

Check Also

গরিব কিভাবে হওয়া যায়

গরিব কিভাবে হওয়া যায় এবং সারাজীবন কিভাবে গরিব থাকা যায়?

গরিব কিভাবে হওয়া যায় এবং সারাজীবন কিভাবে গরিব থাকা যায়? আজ আমরা জানতে চলেছি যে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *